মরহুম প্রসঙ্গ

Print
Category: সংস্কৃতি রীতিনীতি
Published Date Written by সিরাজুল ইসলাম (আবুসামীহা)

ইসলামে অজ্ঞতা ও অতিরঞ্জনের কোন স্থান নেই। তাই সরল পথ ইসলামে ছোট-বড় সকল বিষয় অত্যন্ত সুস্পষ্টভাবে বর্ণিত হয়েছে। সাধারণতঃ কোন মানুষ মারা গেলেই আমরা শুনি "মরহুম অমুক", "মরহুম তমুক"। মনে হয় যেন মরহুম শব্দটার মানে হল মৃত। অর্থাৎ "মরহুম দবিরুদ্দিন" মানে হল "মৃত দবিরুদ্দিন"।

আবার অনেকে মনে করে মরহুম মানে বোধ হয় কোন সম্মানজনক উপাধি। উপজেলা শহরের কলেজ নিয়ে একখানা গল্প শুনেছিলাম একবার; জানিনা সত্য-মিথ্যা কতটুকু। কলেজে অনেকেই বিভিন্ন অনুদান দিয়ে থাকেন। এরকম একজন অনুদানকারী সম্পর্কে কলেজ বোর্ডের মিটিং-এ আলোচনাকালীন সময়ে বলা হলো "মরহুম অমুক"। আবার বৈঠকে উপস্থিত এক ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাহেব(যিনিও নিয়মিত অনুদান প্রদানকারীদের দলের একজন) -এর নাম নেয়ার সময় "মরহুম" বলা হয়নি। বেচারা মন খারাপ করলেন এবং রেগে গিয়ে বললেন, "মরহুম" হতে হলে কী করতে হবে? কত টাকা দান করতে হবে? আমি কি অমুকের চেয়ে কম দিয়েছি নাকি? তাহলে তাঁকে মরহুম বলা হবে, আমাকে নয় কেন?

আসলে কোন মৃত মানুষ মানেই "মরহুম" নন। মরহুম মানে হল "যার উপর রহম করা হয়েছে"; মানে তিনি আল্লাহর রহমত লাভ করেছেন। সত্যিকার ভাবে কে রহমত লাভ করেছে আর কে করেনি তা কেউ জানেনা; শুধু আল্লাহ ছাড়া। তিনিই সিদ্ধান্ত নিবেন কাকে তিনি তাঁর রহমতের ছায়ায় আশ্রয় দেবেন আর কাকে দেবেন না। এজন্য আমাদের পক্ষ থেকে বলা "মরহুম অমুক / মরহুম তমুক" মোটেও ঠিক নয়। মৃত মানুষটির জন্য আমরা আল্লাহর কাছে দু'আ করতে পারি যেন তিনি তাকে তাঁর রহমতের ছায়ায় স্থান দেন। সেজন্য মরহুম না বলে বলা উচিৎ "আল্লাহ ইয়ারহাম অমুক" - মানে 'অকুম, আল্লাহ তার উপর রহম করুন'। সেজন্যই আমাদের আলিম উলামা যারা গত হয়ে গেছেন তাঁদের নাম নিলে আমরা বলি, "রহমাতুল্লাহি আলায়হি" বা "রহিমাহুল্লাহ"; মানে "তাঁর উপর আল্লাহর রহমত বর্ষিত হোক" বা "আল্লাহ তাঁর উপর রহম করুন।"

আসুন মৃতদের নাম নিলে মরহুম না বলে "আল্লাহ ইয়ারহাম" বলি। তাহলে তাদের কল্যাণের জন্য দু'আ করা হল।


লেখকের আরো লেখা পড়তে অনুসরণ করুন: সিরাজুল ইসলাম (আবুসামীহা)

.
By Joomla 1.6 Templates and Simple WP Themes